প্রথমবারের মতো বানিজ্যিক ফুলের মেলার উদ্বোধন

কক্সবাজার প্রতিনিধি.

0 47

কক্সবাজারে এই প্রথম দুইদিন ব্যাপী কোনো ফুলের বাণিজ্যিক মেলার উদ্ভোধন করা হলো। তবে জেলা প্রশাসকের একান্ত প্রচেষ্টা এটি সম্পন্ন হয়েছে। ফুলের বাণিজ্য সম্প্রসারণে কক্সবাজারে দুইদিন দিনব্যাপী ফুল উৎসব শুরু হয়েছে। বুধবার (২২ মার্চ) সকালে কক্সবাজার পাবলিক লাইব্রেরী ময়দানে মেলার উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) বিভীষণ কান্তি দাশ।

ফুলের বাণিজ্যিক প্রসার বাড়াতে এ উৎসবের আয়োজন করে এসডিসি এগ্রো লিমিটেড। সার্বিক সহযোগিতা করছেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কক্সবাজার। ২৩ মার্চ বৃহস্পতিবার এ মেলা শেষ হবে।

উদ্বোধনী বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বলেন, বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর ও মনোরম এলাকা কক্সবাজার। কক্সবাজারের নাম জানে না এমন কেউ নেই। পর্যটন নগরীতে যুক্ত হয়েছে ফুলের সমারোহ। বর্তমানে কক্সবাজারের চকরিয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় অনেক ফুল উৎপাদন হচ্ছে।

এখানকার ফুলের সুবাস শুধু সমৃদ্ধি ছড়াচ্ছে না, দেশের অর্থনৈতিক সোপানও বৃদ্ধি করেছে। ফুলকেন্দ্রিক পর্যটনশিল্পের বিকাশে এ উৎসব ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মেলাকে কেন্দ্র করে চকরিয়ার ফুল চাষী ও কক্সবাজারের ব্যবসায়ীরা মেলাজুড়ে দৃষ্টিনন্দন করে সাজিয়েছেন। মেলাস্থলে কাঁচা ফুলের আদলে রূপ দেওয়া হয়েছে বিবাহের গাড়ি, বাসরঘর ও ফটোসেশন স্টল।

চকরিয়ার ফুলচাষি জায়েদুল ইসলাম বলেন, চকরিয়ায় বর্তমানে প্রচুর ফুল উৎপাদন হচ্ছে। প্রশাসন ও সংশ্লিষ্টদের পরামর্শ আর্থিক সহযোগিতা পেলে চাষীরা অনেক লাভবান হবেন।

কক্সবাজারের ঐতিহ্যবাহী ফুল ব্যবসায়ী সান ফ্লাওয়ারের পরিচালক শফিউল আলম বলেন, ‘ফুল উৎসব আমাদের ফুলচাষিদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে। আমরা চাই, প্রতিবছর এই উৎসবের আয়োজন করুক সংশ্লিষ্টরা।’ একই সঙ্গে কক্সবাজারের উৎপাদিত ফুল সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। মেলায় ২০ টি স্টল দেয়া হয়। সেখানে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল প্রদর্শন করা হয়।

মেলায়, ‘নানান রঙের ফুলের মেলা, পর্যটন নগরী কক্সবাজার জেলা’এমন দৃষ্টিনন্দনে কক্সবাজার জেলাকে ব্র্যান্ডিং করছে সরকার। চকরিয়া ফুলের ঐতিহ্য দীর্ঘকালের। ফুলচাষি, ব্যবসায়ী ও দর্শনার্থীদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে কক্সবাজারের ফুল।

মন্তব্য করুন।

আপনার মেইল প্রকাশিত হবে না।