বিয়ের দাবিতে রংপুরের তরুনী পুঠিয়ায় অনশন

রাজশাহী প্রতিনিধি.

0 15

বিয়ের দাবিতে রংপুর থেকে তরুনী এসে অনশন করছেন  প্রেমিক এরশাদ আলীর বাড়িতে। প্রেমিক জানতে পেরে বাড়ি থেকে পলাতক রয়েছে। আজ মঙ্গবার (২৫ জুলাই) সকাল থেকে ওই তরুনী অনশনে বসেন প্রেমিক এরশাদ আলীর বাড়িতে।

সরে যমিনে গিয়ে এর সত্যতা পাওয়া গেছে। সেখানে গিয়ে দেখা যায় উপজেলার ভালুকগাছি ইউপির নওপাড়া গ্রামের রাখাল মিয়ার ছেলে, এরশাদ আলীর বাসায় অনশন করছেন রংপুর থেকে আসা ওই তরুণী। সাংবাদিকরা মেয়েটির সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে রাখাল মিয়া মেজো ছেলে, আশরাফুল ওই বাড়ি থেকে সবাইকে তাড়িয়ে দেয়।

এ মনকি স্থানীয় এলাকাবাসীদেরকেও ওই বাড়িতে ঢুকতে দিচ্ছেন না। পরে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অনশনে বসা ওই তরুণীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তরুণীর সাথে কথা হয়। ওই ঘটনা এলাকায় চাঞ্চল্য ও হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে মুঠোফোনে অনশনে বসা ওই তরুণীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা দুজনে ঢাকার মেঘনায় একটি কোম্পানিতে কাজ করার সুবাদে এরশাদের সাথে সম্পর্ক তৈরি হয়। তা একপর্যায়ে প্রেমের সম্পর্কে রূপ নেয়। আমাদের প্রায় ৮ মাস যাবত প্রেমের সম্পর্ক।

গত কিছুদিন আগে ঢাকার মেঘনা এলাকায় আমাদের দুজনের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল কিন্তু ওই ছেলেটি আমাকে ওখানে রেখে বিয়ে না করে এখানে পালিয়ে চলে আসে। তাই আমি  তার দেওয়া ঠিকানায় তার বাসায় এসে বিয়ের দাবি জানাচ্ছি।

আমার প্রেমিক এরশাদের সাথে আমার টাকা লেনদেন রয়েছে তাকে আমি বহু টাকা দিয়েছি। আমি টাকা ফেরত চাই না। আমি স্বামী হিসেবে পেতে চাই। এ বিষয়ে  প্রেমিক এরশাদের  কাছে জানতে চাইলে তিনি  ফোন রিসিভ করেননি।

ওই ঘটনায় জানতে চাইলে স্থানীয় মেম্বার সাইদুর রহমান তিনি বলেন, এরশাদের বাসা থেকে আমাকে এখন পর্যন্ত কিছু জানানো হয়নি। আমি যখন ওই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলাম তখন ওখানে দাঁড়িয়ে শুনলাম ঘটনাটি। পরে ওই অনশনে বসা মেয়েটির সাথে কথা হয়। ওই মেয়েটির সাথে কথা বলে জেনেছি তাদের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে তাই এত দূর থেকে বিয়ের দাবিতে এখানে এসেছে।

মন্তব্য করুন।

আপনার মেইল প্রকাশিত হবে না।